02-9013951, 01910044992, 01910044996

  • দেশ মেডিকেল ইন্সটিটিউটে আপনাকে স্বাগতম

দেশ মেডিকেল ইনষ্টিটিউট (DMI)

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে কারিগরি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত সম্পূর্ণ বেসরকারী পরিচালনায় দেশ মেডিকেল ইন্সটিটিউটে  (DMI) ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উৎকর্ষতার এই যুগে বাংলাদেশের পিছিয়ে থাকার কোন অবকাশ নেই। আমাদের দেশে মধ্যমস্তরের চিকিৎসা /মেডিক্যাল টেকনোলজিষ্ট এর ফলে বাংলাদেশের অধিকাংশ জনগোষ্ঠী চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। রোগ নির্ণয়ের জন্য যেমন আধুনিক ও উন্নত যন্ত্রপাতি যারা পরিচালনা করেন তাদের যথাযথ ভাবে শিক্ষিত ও দক্ষ হওয়া প্রয়োজন। এ জন্য স্বাস্থ্য প্রযুক্তির তথা মেডিক্যাল টেকনোলজিষ্টদের চাহিদা দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। এই বিপুল চাহিদা মেটানোর জন্য সরকার দেশের বিভিন্ন সরকারী মেডিক্যাল কলেজ / ইনস্টিটিউট ছাড়াও বেসরকারী প্রতিষ্টানেও স্বাস্থ্য প্রযুক্তি ও সেবা-শিক্ষাক্রম পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে। এরই ফলশ্রুতিতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে "দেশ মেডিক্যাল ইনষ্টিটিউট" মানসম্মত শিক্ষাদান আমাদের অঙ্গীকার এবং তুলনামূলক কম খরচে দক্ষ টেকনোলজিষ্ট গড়ে তোলার জন্য আমরা প্রতিশ্রুতি বদ্ধ। বর্তমান বিশ্বের প্রযুক্তির প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার লক্ষ্য আন্তর্জাতিক মানের মেডিক্যাল টেকনোলজিষ্ট তৈরী করে মহান মুক্তিযুদ্ধের দ্বারা অর্জিত আমাদের প্রিয় বাংলাদেশের গণ-মানুষের স্বাস্থ্য সেবা দেয়ার মাধ্যমে সুস্থ্য জাতি গঠনে অবদান রাখার প্রতিশ্রুতি নিয়েই ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত MAS ফাউন্ডেশন কর্তৃক পরিচালিত "দেশ মেডিক্যাল ইনষ্টিটিউট" প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

একাডেমিক ভবন: এই ডিপ্লোমা ইনষ্টিটিউটের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ৪ তলা বিশিষ্ট একটি ভবন রয়েছে। ভবনে মোট কক্ষ রয়েছে ২৪ টি ।

৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-মেডিকেল টেকনোলজি কোর্সগুলো:

  • ডিপ্লোমা-ইন-ফার্মেসী
  • ডিপ্লোমা-ইন-ডেন্টাল
  • ডিপ্লোমা-ইন-ফিজিওথেরাপি
  • ডিপ্লোমা-ইন-নার্সিং (পেশেন্ট কেয়ার)
  • ডিপ্লোমা-ইন-ল্যাবরেটরী মেডিসিন (প্যাথলজি)
  • সার্টিফিকেট-ইন- ল্যাবরেটরী মেডিসিন (প্যাথলজি)- ১ বছর

ভর্তির যোগ্যতা ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র:

  • ১ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল টেকনোলজি কোর্সে ভর্তির জন্য এস.এস.সি/সমমানের পরীক্ষায় যে কোন বিভাগ হতে ন্যূনতম জিপিএ ২.৫০ পেতে হবে।
  • ৩/৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল কোর্সে ভর্তির জন্য এস.এস.সি পরীক্ষায় জিপিএ ২.৫০ পেতে হবে।
  • ভর্তির ক্ষেত্রে বয়স ও পাশের সন শিথিলযোগ্য।
  • আবেদনপত্রের সাথে এস.এস.সি / সমমান পরীক্ষার মার্কসীট এর মূলকপি।
  • ৪ কপি রঙ্গীন পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং ৪ কপি রঙ্গীন ৩৮ x ৩৮ সাইজের ছবি।
  • এখানে ভর্তি পরীক্ষা দিতে হয় না। যোগ্যতা ও আসন খালি থাকা সাপেক্ষে ভর্তি করানো হয়।
  • ভর্তি ফরম কলেজ অফিস থেকে বিতরণ করা হয়।
  • ভর্তি হওয়ার জন্য কোন ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা হয় না। কাঙ্খিত গ্রেড পয়েন্ট থাকলেই ভর্তি করা হয়।

শিক্ষা ব্যায়: সকল প্রকার ফি কলেজ ক্যাশ কাউন্টারে নগদ টাকায় পরিশোধ করতে হয়। ক্যাশ কাউন্টারটি ভবনের নিচতলায় অবস্থিত।

দ্রষ্টব্য: বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত রেজিষ্ট্রেশন ফি, পরীক্ষার ফি ও অন্যান্য ফি প্রদান করতে হয়।

ক্লাসের সময়সূচী: শুক্রবার ও অন্যান্য সরকারী ছুটির দিনে ক্লাস বন্ধ থাকে। এছাড়া সপ্তাহের অন্যান্য দিন সকাল ৮.০০ টা থেকে বিকাল ২.০০ টা পর্যন্ত ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিটি ক্লাসের ব্যাপ্তিকাল ৫০ মিনিট করে।

ক্লাসের সজ্জা: এই ইন্সটিটিউটে ক্লাসসমূহে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা নেই। শিক্ষার্থীদের বসার জন্য সিঙ্গেল কাঠের তৈরী চেয়ার-টেবিল রয়েছে। মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের সাহায্যে ক্লাস নেয়া হয়।

শিক্ষকবৃন্দ: এই ইন্সটিটিউটে শিক্ষারত শিক্ষার্থীদের পাঠদানের জন্য ২০ জন অস্থায়ী শিক্ষক-শিক্ষিকা রয়েছেন। এদের মধ্যে ১৩ জন শিক্ষক এবং ৭ জন শিক্ষিকা রয়েছেন।

ড্রেসকোড: এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষাব্রত শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট  ড্রেসকোড আছে। ল্যাবরেটরীতে প্রবেশের সময় অবশ্যই সাদা এপ্রোন পরিধান করতে হয়।

ল্যাব: শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন বিষয়ে ব্যবহারিক শিক্ষা দানের জন্য একটি ল্যাব রয়েছে।

লাইব্রেরী: শিক্ষা বিষয়ক বিভিন্ন ধরনের বইয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের জাগতিক বিষয়ের বইয়ের সমারোহে সজ্জিত এই ইন্সটিটিউটের লাইব্রেরীটি একাডেমিক ভবনের ৪র্থ তলায় অবস্থিত। লাইব্রেরীতে মোট ৫,০০০ বই রয়েছে। লাইব্রেরীটি সকল শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত। লাইব্রেরী কার্ডের ব্যবস্থা আছে। এখানে বসে বই পড়ার জন্য চেয়ার-টেবিলের ব্যবস্থা রয়েছে। রেজিস্টারে কোর্সের নাম, শিক্ষার্থীর নাম, রোল ও আইডি কার্ড প্রদর্শন করে ৩ দিনের জন্য বই বাসায় নিয়ে যাওয়া যায়। বাসায় নিয়ে যাওয়া বই যদি কোন কারণে হারিয়ে যায় বা ক্ষতিগ্রস্ত হয় তাহলে ক্ষতিপূরণ বাবদ বইয়ের বর্তমান বাজার মূল্য  প্রদান বা অনুরূপ অন্য আরেকটি বই জমা দিতে হবে।

ভর্তিতে ছাড়: এস.এস.সি / সমমানের পরীক্ষার্থীদের জি.পি.এ ৫ থাকলে বিশেষ ছাড় দেয়া হয়। মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক,প্রকৌশলী সন্তান , ভাই-বোন বা উপজাতি শিক্ষার্থীদের বিশেষ ছাড় দেয়া হয়। ক্লাসে উপস্থিতি,আচরণ,পোশাক-পরিচ্ছেদ, ক্লাস টেস্ট, কুইজ টেস্ট,মধ্যপর্ব পরীক্ষা ,মডেল টেস্ট,সেমিষ্টার ফাইনাল পরীক্ষা ইত্যাদি বিবেচনা করে বিশেষ ছাড় দেযা হয় ।

ইন্টার্নী ব্যবস্থা: উক্ত প্রতিষ্ঠানে পাঠরত শিক্ষার্থীদের কোর্স শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ফিল্ড ট্রেনিং এবং এই কলেজে ইন্টার্নী করা হয়।